ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণ করে যে ৫ খাবার


ক্ষুধা একটি স্বাভাবিক জৈবিক সংকেত হলেও সবসময় ক্ষুধা অনুভব করা অস্বাভাবিক। অনেকের ক্ষেত্রেই দেখা যায়, সকালের নাশতা অথবা দুপুর বা রাতে খাওয়ার আধা ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা পরেই আবার অস্বাভাবিক ক্ষুধা লাগছে। অর্থাৎ খাবার কিছুক্ষণ পরেই আবার খেতে ইচ্ছা করা বা বেশি বেশি খাওয়ার পরেও আরও খেতে ইচ্ছা করা বেশি ক্ষুধা লাগার প্রধান লক্ষণ।

শীতকালে সাধারণত ক্ষুধা বেশি লাগে এবং শরীর চাঙ্গা রাখার জন্য অন্য সময়ের চেয়ে খাওয়ার পরিমাণ বেড়ে যায়। অতিরিক্ত খেলে আবার ওজন বেড়ে যায়। তাই এমন খাবার খাওয়া উচিত, যা দীর্ঘক্ষণ ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

এক গবেষণায় দেখা গেছে, ডার্ক চকলেট মিষ্টি এবং লবণাক্ত হওয়ায় খাবারের প্রতি ঝোঁক কমায়। এ ছাড়া এটি অনেক সময় মানসিক প্রশান্তি আনে, হার্টের কার্যক্রমের উন্নতি ঘটায় এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

যুক্তরাষ্ট্রের সায়ান্ট লুইস ইউনিভার্সিটির এক গবেষণায় দেখা গেছে, সকালের নাস্তায় ডিম খেতে পারেন। ডিমে রয়েছে প্রয়োজনীয় সব অ্যামিও অ্যাসিড। ডিম প্রোটিনসমৃদ্ধ হওয়ায় দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখে ও ক্ষুধা কম লাগে।

দৈনিক আধা চা চামচ তিসির বীজ খেলেই উপকার পাবেন।

মিষ্টি আলু ও বিটরুটের মতো খাবার ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণে সহায়ক। এ ছাড়া ওটস খেতে পারেন। এতে ফাইবারের পরিমাণ বেশি, যা হজমে অনেক সময় নেয়।

খেতে পারেন পালংশাক। শীতকালীন এই শাকে থাকা পুষ্টি উপাদানগুলো ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণে সহায়ক।

এই রকম আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.